রজনীর শনির দশা -৩

হাই জাম্পে মনুমেন্টের মাথা ছুঁয়ে নেমে এলেন রজনীকান্ত। ধুন্ধুমার ব্যাপার। হাততালি কলরবে কান পাতা দায়।
কিন্তু রজনীর মনে একটু খুঁত ধরল যখন দেখলেন যে যাবতীয় উল্লাসের মাঝে এক রোগা কালো লম্বাটে এক ভদ্রলোক বিশ্রী বাঁকা হাসি মেলে দাঁড়িয়ে আছেন। ভদ্রলোকের চেহারায় একটা টানটান ব্যাপার ছিল। কিছুটা আগ্রহ বোধ করায় ভদ্রলোকের দিকে নিজেই এগিয়ে গেলেন রজনী।
- জাম্পটা দেখলেন কী?
- বেশ ভালো। টেকনিকে নিয়ারলি পার্ফেক্ট।
- নিয়ারলি পার্ফেক্ট?
- প্রায়।
- এর চেয়ে বেটার টেকনিক আবার হয় নাকি? মনুমেন্টের ডগা ছুঁয়ে এসেছি।
- তাই তো বলছি। মন্দ না।
- মন্দ না! এর চেয়ে ভালো জাম্প আপনি দেখেছেন?
- নিজের লাফ নিজে দেখেছি বললে ভুল হবে।
- আপনি এর চেয়ে উঁচু লাফ দিতে পারবেন?
- এর উত্তর দেওয়ার কোন মানে হয় না।
- বেশ তো। আমি ডুয়েলে চ্যালেঞ্জ করছি। লাফ দিয়ে দেখান না। এস্পার ওস্পার হয়ে যাক।
- অকারণ উত্তেজনা স্পোর্টসম্যান স্পিরিটের সাথে খাপ খায় না রজনীবাবু।
- লাফ দিতে ভয়?
- ভয়? হেহ। ভয়ই বটে। তবে শুনুন। স্পেসস্যুট ছাড়া হাইজাম্প দিতে আমার ভয়ই লাগে। আর তাছাড়া আজকাল স্যাটেলাইটগুলো এত নিচুতে অরবিট করে, অন্তত বারোখানা দেশের সরকারকে অ্যালার্ট না করে হাই জাম্প দেওয়ার দুঃসাহস বা বিলাসিতা ; সত্যিই আমার সাজে না। যাকগে, সে'সব বাদ দিন। এ নিন আপনার সিগারেটের প্যাকেট, লাফ দেওয়ার সময় পকেট থেকে পড়ে গেছিল। প্রাণায়ামটা ঠিকঠাক গ্রিপ করতে পারলে আপনার লাফানোর টেকনিক ইম্প্রুভ করত, টপাটপ পকেট থেকে জিনিস পড়ে যেত না।আর হ্যাঁ, খান চারেক সিগারেট কম রয়েছে বাক্সে। ধার রইল। কেমন?
রজনী বেশ টের পাচ্ছিলন যে তার স্যান্ডো গেঞ্জিটা জ্যানুয়ারির ময়দানি বিকেলেও ঘামে ভিজে সপসপ করছে।

Comments

aritra sanyal said…
এই হল গিয়ে ন্যারেটিভ, তা ভদ্রলোকটি কে ডমরু, টেনি না ফেলু? সিগারেট থেকে মারাত্মক দিকে টার্ণ নেওয়া যায়।
এটা সন্দেহের কোন জায়গা নেই। ভদ্রলোকের পিছু পিছু গেলে বাহাত্তর নম্বর...
আমার তো ঘনাদা মনে হলো

Popular Posts