Thursday, January 14, 2016

রজনীর শনির দশা - ২

সে'বার। 

রজনীকান্ত সক্কলকে তাক লাগিয়ে দিলেন।  বাঘকে চুমু খাওয়া, চাট্টিখানি কথা? 

দর্শকাসনে উপস্থিত সক্কলে ঘেমেনেয়ে একাকার। এ ব্যাটা যদি রজনীর মুণ্ডুকে মুড়োর মত টপাটপ চিবিয়ে খেয়ে  নেয় ? কিন্তু সক্কল ভয়কে হেলায় হাওয়ায় ভাসিয়ে বাঘকে চুমু খেলেন রজনী। স্মুচ করলেন আর কী। 

হাততালির শব্দে টিকে থাকা দায়। রজনী সেলাম কুড়োতে ব্যস্ত। এমন সময় গোবেচারা চশমাপরা এক ভদ্রলোক সোজা রজনী আর বাঘের মাঝে এসে দাঁড়ালেন। 

- কী ব্যাপার? আপনি কে? এখানে কেন ? বাঘে ছুঁলে কত ঘা সে খেয়াল আছে?
- না মানে...আপনি এমন অবলীলায় চুমু খেলেন...! 
- আমি রজনী। রজনীকান্ত। এ'সব আমার কাছে নস্যি। 
- আমি আপনার কাণ্ড কারখানা দেখে ঘেমেনেয়ে একশেষ। 
- আপনি ঘেমেছেন তো আমি কী করব?
- না মানে...আমার রুমালটা...। 
- আপনার রুমালটা কী হল?
- পকেট থেকে হাওয়া। 
- তো আমি কী করব...? 
- মুখের ঘামটা যে না মুছলেই নয়। ওদিকে রুমাল ছাড়া যে আমি নিরুপায়। 

রজনী বিরক্তির সাথে আর দু'টো কটু কথা কইতে যাবেন এমন সময় রজনীর চোখে ছানাবড়া ভেজে গোবেচারি ভদ্দরলোক বাঁ হাতে বাঘটাকে তুলে, তিন আঙুলে খেলিয়ে ভাঁজ করে, মুখে বার কয়েক ঘষে; ফের মাটিতে নামিয়ে দিলেন। বাঘবাবাজী ভদ্রলোকের ঘাম আর নিজের ঘামে নাস্তানাবুদ। 

রজনী বেকুবের মত দাঁড়িয়ে রইলেন। ভদ্রলোক মুখের ঘাম মুছে ততক্ষণে হাঁটা লাগিয়েছেন। 

- ও...ও মশাই। ইয়ে কেয়া হুয়া? আই মিন এটা কী হল?
- আমি রিয়েলি সরি। রুমালটা পকেটে না থাকায়...আপনাকে একটু ইয়েতে ফেলতে হল...আসি রজনীবাবু...। 
- আপনার নামটা স্যার...যদি কাইন্ডলি জানাতেন স্যার...।
- আমার নাম?
- গুরুদেব। প্লীজ। এ ভক্তকে অ্যাট লিস্ট বেনামে পুজো করতে বলবেন না। 
- আমি সুকুমার। সুকুমার রায়। চলি এখন, কেমন ? 

1 comment:

Anonymous said...

না পড়লে যা miss করতাম বলে (থুড়ি-লিখে) বোঝাতে পারব না।

ধপাস

সাঁইসাঁই। সাঁইসাঁই। সাঁইসাঁই। পড়ছি তো পড়ছিই। পড়ছি তো পড়ছিই। পড়ছি তো পড়ছিই। পড়ছি তো পড়ছিই। বহুক্ষণ পর আমার পড়া একটা প্রবল 'ধপ...