Friday, February 12, 2016

দু'টো কণা

১।

রাত বাড়লে অন্য বালিশটা নিজের দিকে টেনে নেন সমর।

ব্যাপারটা থেরাপিস্টের গছানো অপটিমিজম না
গয়া ফেরতা ভূত সামাল দেওয়ার কনফিডেন্স;
সে'টা ঠিক ঠাহর করতে পারেন না তিনি।

২।

"সরস্বতী পুজোর দিন প্রবল জন্ডিসে পরাস্ত হওয়ার এই এক সুবিধে মশাই"।

"কাঁচা হলুদে গায়ে ঘষে ভোর ভোর স্নানের ঝামেলা চুকে গেল বলছেন"?

"হে হে। স্পট অন। তা, আপনার কেসটা কী মশাই? বয়স তো যা বুঝছি অল্পই"।

"ওই। হলুদই। আজ অমৃতা হলুদ শাড়ি সেই পরলে, কিন্তু ড্যাং ড্যাং করে ব্যাটা অনিন্দ্যর কাছে সাবমিট করলে নিজেকে"।

"তাই বুঝি এতকিছু? এই চিতার আগুন হলুদ প্রিন্টের পোশাকের জন্য"?

"বেশ মজার লোক কিন্তু আপনি"!

"আর আধ ঘণ্টা বই তো নয়। আপনার পরেই আমার নম্বর"।

"টেক কেয়ার"।

"ইউ টু"।

No comments:

এমন একটা সোমবার

সহকর্মী মিহি সুরে ডেকে বলবেন, "ভাই, তোমার জন্য আজ পান্তুয়া এনেছি, বাড়িতে বানানো৷ তোমার বৌদির স্পেশ্যালিটি৷ লাঞ্চের পর আমার টেবিলে একবা...