Wednesday, February 24, 2016

ভূতের গল্প

ভূতের গল্প ১:

যে আদত তান্ত্রিক; তার কলজে খুন করতে ডরায় না, ভূত ধরে চিবিয়ে খেতেও নয়।
এই তো সে'বার। বলা নেই কওয়া নেই হাফ ডজন রসগোল্লাকে প্লাস্টিকের টিফিন বাক্সে করে ফ্রিজে ঢুকিয়ে রাখলেন তারক তান্ত্রিক।
তার ঠিক ছ'দিনের মাথায় তিন জোড়া ভূতের ছিবড়ে চিবিয়ে খেলেন তারক।

ভূতের গল্প ২ -

সেক্রেটারি নীলাকে চুমু খেতে গিয়ে দাঁত কপাটি লাগার জোগাড় হল শ্যামল দত্তর।
"ভূ....ভূ....ভূ....ভূত"!!!!!
নীলা ভেবড়ে গিয়ে পিছন ফিরে দেখলে দরজা আলো করে মিসেস দত্ত দাঁড়িয়ে। চোখে আগুন, কপালে শীরার টনটন।
গলা শুকিয়ে গেছিল নীলার।
" আ...আপনার মিসেস...মা...মা...মারা গেছেন নাকি স্যার...দরজায়...ও...ও'টা আত্মা?"
কুঁইকুঁই করে শ্যামল দত্ত সারেন্ডার করলেন;
"আত্মা হলে কী আর ভূতের ভয় হত? ওঝা আছে। ওঝার বাপ আছে। এ যে জ্যান্ত গিন্নী। জ্যান্ত! ওঝালেস!!....আ...আ...আ"!!!

No comments:

অনুরাগের লুডো

অনুরাগবাবু আমার অত্যন্ত প্রিয়৷ তার মূলে রয়েছে "বরফি"। লোকমুখে ও বিভিন্ন রিভিউয়ের মাধ্যমে জেনেছি যে বরফিতে ভুলভ্রান্তি ...