Tuesday, February 2, 2016

টাইম মেশিন আর নৌকা


অমিত রায় সে'বার টাইম মেশিন আবিষ্কার করলেন।
অতঃপর সোজা সেই মেশিনে চড়ে দু'হাজার ষোলো শালে ল্যান্ড করলেন। নেমেই শুনতে পেলেন নজওয়ান ছেলেপিলেরা তার যন্ত্রের প্রশংসা করছে আধুনিক বাঙলা ভাষায়; "কাকা, লে বন্য যন্ত্র বানিয়েছেন"।
পত্রপাঠ যন্ত্রে চেপে নিজের সময়ে ফিরে গেলেন অমিত রায়। ওয়াপিস গিয়েই লাবণ্যকে রিজেক্ট করে কেটিকে বিয়ে করে "লে বন্য" হুঙ্কার ভোলালেন তিনি।




- খুড়ো। ও খুড়ো।
- কী?
- বলি নৌকাটা...।
- নৌকাটা কী?
- নৌকাটা কী করবেন?
- কী করব মানে?
- মানে ইয়ে, আপনার কাজ তো মিটে গেছে, এবার ও'টা আমায় দেবেন?
- না।
- না?
- না।
- কেন? 
- ও দিয়ে কাজ আছে।
- কী কাজ নোয়া খুড়ো?
- ও নৌকা ভেঙে আমি মাসকাবারির থলে গড়াব হাজার খানেক।
- নৌকা ভেঙে মাসকাবারিরর থলে খুড়ো?
- সংসারে কত কী লাগে । যে ব্যাগ দুনিয়া হজম করতে পারে না তা দিয়ে কি গেরস্থের মাসের বাজার হয় রে? তাই। এ নৌকা ভেঙে...।
- মাসকাবারির থলে গড়াবে?
- ঠিক।
- তোমার মাথায় ব্যামো হয়েছে নোয়াখুড়ো। হাই কোয়ালিটির সি সিকনেস।

No comments:

বাইশের দুই বিনোদ দত্ত লেন

- কাকে চাই? - ম্যাডাম, এ'টা কি অমলেশ সমাদ্দারের বাড়ি? - ওই ঢাউস নেমপ্লেটটা চোখে পড়েনি? ও'টায় কি অমলেশ সমাদ্দার লেখা আছে?...