Thursday, July 16, 2015

শনির দশা

অধম মদ - স্কচ।
মধ্যম মদ - চিলেকোঠার আড়ালে রাখা চুমু।
উত্তম মদ - চোখের সামনে বাঁটুল দি গ্রেটের খোলা পাতা, জিভে সপ্তদীপা চানাচুরের মিহি স্বাদ, কানে হেমন্তুর গুনগুন, বুকে জড়ানো বাটিক প্রিন্টের ওয়াড় দেওয়া পাশবালিশ।
নিজের স্যাটারডে নাইট; বেছে নিন, গুছিয়ে নিন।

**
-নেশা হয়েছে ভায়া?
-না বললে বিশ্বাস করবেন?
-না। মাতাল মাত্রেই সে বলে থাকে যে তার নেশা হয়নি।
-হ্যাঁ বললে?
-ভাববো ভান করছেন। 
-কী বুঝলেন?
-কী বুঝব?
-সোশ্যাল নর্মস, কালচার আর কন্ডিশনিং। সবচেয়ে গভীর মদ। একটা এন্ট্যায়ার স্পেসি সে মদে মাতাল হয়ে ছড়ি ঘোরাচ্ছে। মদ খাওয়া কে আপনি ভালো খারাপে মাপেন, সেই মুরুব্বিয়ানার ফিতে হাতে সব কিছু মেপে বেড়ানোই হচ্ছে আদত মাতলামি। সহমানবের উত্তরে বিশ্বাস রাখবেন না জেনেও প্রশ্ন করেন। দ্যাট ইজ মাতলামো।অফ কোর্স; আমিও মাতাল। কিন্তু এই দু'টো চুমুক দিয়ে মাঝেসাঝে মাতলামির বাইরে এসে দুনিয়াটা চেখে যাই।
-মানে আমিই মাতাল, কারণ আমি মদ খাচ্ছি না। আপনি নন, কারন আপনার হাতে আজকের ছয় নম্বর পেগ। তাই তো?
-করেক্ট। মাস্ট সে, আপনি জাতে মাতাল কিন্তু তালে ঠিক।

**
স্রেফ শনিবার রাতের লোভে একদল বাঁদর বাঁদরামি ছেড়ে স্যাপিয়েন হলে।
হিউম্যানিটির জন্ম হল ল্যাদের ফ্যাব্রিকে ফুর্তির এম্ব্রয়ডারি আঁকার জন্য। মুশকিল হল; ফাঁকতালে হিউম্যানিটির লেজুড় হয়ে বাজারে এলে ইকনমিক্স। আর ইকনমিক্সের কলার টেনে এন্ট্রি নিলে হাঁড়িমুখের সোমবার।
শনিবার রাত একটানা মানবতার বেলুনে হাওয়া ইঞ্জেক্ট করে চলেছে আর সোমবার সকাল পেল্লায় ছুঁচ হাতে রক্তচক্ষু দেখিয়ে বেড়াচ্ছে। টেকনোলজি এগোচ্ছে, সভ্যতা এগোচ্ছে; কিন্তু অসভ্যতার অদম্য নেসেসিটি কারোর গোচর হচ্ছে না। দ্যাট ইজ দ্য প্রব্লেম। সেটাই সত্তর হাজার বছর বয়সের আয়রনি।

No comments:

তিব্বতি মাদুলি

- মনখারাপ? - আজ্ঞে। প্রচণ্ড। টেরিফিক লেভেলে মনখারাপ। - সে তো বুঝলাম। কিন্তু কেন? জয়েন্টে ফেল? মিনিবাসের পকেটমারিতে সত্তর টাকা জল...