মারো গুলি


- দত্ত! অ্যাই যে, দত্ত! আমার টেবিলে খবরের কাগজ আজ একটা কম কেন?
- তিপ্পান্নটা কাগজের জায়গায় বাহান্নটা রয়েছে, এতে অত চেল্লামেল্লির কী হয়েছে মিনিস্টারদাদা?
- সেক্রেটারি হয়ে এত চ্যাটাংচ্যাটাং কথা বলার সাহস তুমি পাও কী করে! ব্যাটার যত বড় মুখ নয় তত বড়..।
- সুইস ব্যাঙ্কের পাশবই আপডেট করিয়ে এনেছি গতকাল।
- তোমার সবদিকে খেয়াল ভায়া। তুমি না থাকলে আমি যে কী করতাম..। 
- বলছিলাম, খবরেরকাগজে মুখ গুঁজে পড়ে না থেকে ব্রেকফাস্টটা তাড়াতাড়ি সেরে ফেলুন৷ দশটা নাগাদ জ্যাপান ডট ওআরজির ডেলিগেটদের সঙ্গে মিটিং আছে। 
- ওহহো,তা ওদের জন্য লাঞ্চের ব্যবস্থা কী করেছ? বড্ড বায়নাক্কা ওদের। লিথিয়ামটিথিয়াম কিন্তু ওদের জন্য বড্ড স্পাইসি।
- মিনিস্টারদাদা, টোটালি সোলার বুফে রেখেছি৷ চেটেপুটে খাবে। 
- গুড গুড। ওদের ক্ষেত্রে অবশ্য একটা সাফক্লাস সুবিধে আছে। আমাদের মত মানুষ ট্যাঁকে নিয়ে ঘোরার বিশ্রী ঝ্যামেলা ওদের নেই।
- ঝামেলা বলে ঝ্যামেলা। মালগুলো দু'আনার কাজ করে আর বারো আনার অধিকার দাবী করে। 
- আহা দত্ত, ওরা আহাম্মক হতে পারে, তা বলে ওদের মাল বলে ডেকো না। ওরা না থাকলে তো আর আমরা...।
- আহাম্মক, নেকুপুষু, রিসোর্স-খেকো; কিছু বলতেই আর দোষ নেই। এই যেমন ডাইনোসরদের ফ্যাট আগলি বাস্টার্ডাস বললেও সেন্টিমেন্ট হার্ট করার ব্যাপার থাকে না।
- আমি ঠিক বুঝতে পারছি না দত্ত...।
- মিনিস্টার সব কিছু বুঝলে সেক্রেটারি তার ন্যাজটা নাড়বে কী করে বলুন। বুঝিয়ে বলি বরং, এখন কিন্তু আমরাও জ্যাপান ডট ওআরজি'র মত সুপারপাওয়ার...সিকিউরিটি কাউন্সিলের ডাক এলো বলে...। 
- বলো কী দত্ত! কিন্তু দেশে মানুষ থাকলে তো..।
- মিনিস্টারদাদা...তিপ্পান্নটা কাগজের মধ্যে কোন কাগজটা কম সে'টা বোধ হয় খেয়াল করেননি৷ এ দেশের খবরের কাগজগুলোর মধ্যে একটাই ছিল ব্যাটাচ্ছেলে মানুষগুলোর। 
- সে কাগজ বন্ধ করে দিয়েছ?
- আজ্ঞে না, সে কাগজের প্রয়োজন ফুরিয়েছে। ইন্ডিয়া ডট বিজের যত মানুষ; সব এক্কেরে একরাতে ঝেঁটিয়ে সাফ করেছি। এ'বার থেকে শুধুই আমরা। কন্ট্রোল রুমে বসে যে বোতাম যেমন টিপবেন, দেশের সক্কলে তেমনই মুণ্ডু দোলাবে।
- এ'বার থেকে..শুধু...শুধুই আমরা? শুধুই রোবট...? 
- কে...কেন?
- আরে মালগুলোর খালি কথায় কথায় প্রতিবাদ। কাজেকম্মে এন্তার ভুল অথচ অনবরত হিউমান রাইটস হিউমান রাইটস বলে ভ্যাজরভ্যাজর করেই চলেছে৷ এ'সব ন্যাকাপনা চলতে থাকলে ইন্ডিয়া ডট বিজ ক্র‍্যাশ করতই৷ কাজেই...ওই তর্ক-লজিক-ডিবেট ঢের হয়েছে। গুলি করে মেরে ফেলবার সহজ উপায় থাকতে শৌখিন যুক্তিতর্কে অকারণ সময় নষ্ট করার যে কী দরকার।

Comments

Popular Posts