Tuesday, August 4, 2015

রিটার্ন অফ বন্ধু


-হালোয়ামোহনবাবু, ও হালোয়ামোহনবাবু।

-আঁ...আঁ...।

-বাত করতে কষ্ট্ হচ্ছে?

-হাঁ..।


-টাইম ট্যু গো আঙ্কিল।

-টা...?

-আমার সোঙ্গে আসেন।

-এ...এ...হস..হসপিটাল...।

-জানি, হোসপিটাল। আই সি ইউ। বাট আই লাইক ইউ। সো, লেটস গো।

-কিন্তু আমি তো...।

-ভেন্টিলেশনে আছেন। লেকিন ই তো আই-ওয়াশ আছে। হসপাতাল আপনার পইসা হরপে নিলো। মেক্যানিকাল রেস্পিরেশন আপনার ক্যারিস্মাকে স্যুট করে না হালোয়ামোহনজী।

-করে না?

-বিলকুল নহি। আপনি আমার কথা বিসোয়াস করছেন না?

-বিসোয়াসছি। কি...কি...কিন্তু ফে....ফে...।

-মিস্টার মিট্টার ইনাফ করিয়েছেন। বাট নাউ ইট ইজ আ ওয়েস্ট। দেয়ার ইজ নো হোপ।

-হো..?

-হোপ..হোপ আর নাই। আমি আপনাকে ভুলি নাই মোহনবাবু। ইউ আর আ ফ্রেন্ড। আর আমি হেল্প করতে এসেছি।

-হা...হা...হাউ...?

-কী করে হেল্প করব? সিম্পুল। আপনার ভেন্টিলেশন রিমুভ করিয়ে দিব। সিম্পুল। বাট অনলি উইথ ইওর পারমিশন।

-অ। কোনও..চা..চান্স যদি থাকে?

-কুছু নেই। ম্যাটার অফ ট্যু অর থিরি ডেজ। অনলি পেইন ফর ইউ। অউর হার্ড আর্নড মানির বরবাদি।

-কি...কি...কিন্তু...আপনি এ..এখা...।

-এখানে কী করে এলম? আই ক্যান গো এনিহোয়্যার। দু'সাল পহলে এক কমিনা অস্পাতাল আমায় বেকার ভেন্টিলেশনে ফেলিয়ে রাখল। আমিও উল্লু নাই। অর্জুনকে দিয়ে ভেন্টিলেশন রিমুভ করিয়ে দিলাম। এন্ড অফ ওয়েস্টেজ। মানির ভ্যালু আছে তো, নাকি? আর আমার কষ্ট ভি কম হোল। আপনি কষ্টে আছেন খবর এল। ব্যাস, চলিয়ে এলম। আমি আপনাকে নিয়ে মস্করা করিয়েছি লেকিন হার্ম ইন্টেন্ড করেনি কভি। আই লাইকড ইউ ফ্রম ডে ওয়ান। অ্যাম আ ফ্রেন্ড আঙ্কিল। আর জরুরতের টাইম পে ফ্রেন্ড তো আসবেই। টাইম টু গো হালোয়ামোহনবাবু। টাইম টু গো।

-লে...লে...লেটস....গো..ম....ম...মগনলালজী।

-আসেন।

No comments:

পুরনো লেখা