Wednesday, September 6, 2017

ক্যানিবাল

ইভোলিউশনে একটা মেজর ফাঁক রয়ে গেল। শেষমেশ মানুষ ক্যানিবাল হলে অনেক সমস্যা এড়িয়ে থাকা যেত। 

আমরা সবাই নরখাদক নরখাদকেরই দুনিয়ায়।

যে'খানে সবচেয়ে বড় সুবিধে;
যদ্দিন মানবসমাজ থাকবে তদ্দিন খাদ্যাভাব থাকবে না। আর খাওয়ার চিন্তা না থাকলে তো সবই জলবৎ।

খুনোখুনিতে একটা সিস্টেম তৈরি হবে। খুনের মধ্যে থেকে খুনে ভাবটাই গায়েব হয়ে যাবে।

বন্যা বা অন্যান্য দুর্যোগে খাদ্যসামগ্রী পাঠানোর দায় বেশ সহজ হয়ে যাবে। সরকার স্রেফ দু'চারটে বোমারু বিমান বন্যাদুর্গত রাজ্যে পাঠিয়ে দিলেই ঝামেলা চুকে যাবে।

পোষা গুণ্ডাদের দুষ্টুমিতে দু'একটা লাশটাশ পড়ে গেলে সরকারবাহাদুর দিব্যি বলে দিতে পারতেন "দুঃখজনক, তবে ইলিশের দাম যে'হেতু কমছে না, নরদেহর সাপ্লাই  বেড়ে চলা মানে ফুড-ইনফ্লশন বাগে আনা"।

যুদ্ধটুদ্ধ বন্ধ হয়ে যেত। যুদ্ধজয় মানেই শত্রুদের খাবার সাপ্লাই দেওয়া। জিতলেও হার, হারলেও কেলো। যুদ্ধের কন্সেপ্টটাই বাদ যেত।

তাছাড়া গডসে টু আধুনিক চাপাতিওলাস; সবার পপুলার ফুডব্লগ থাকত।

চুমু খুব রিস্কি ব্যাপার হত অবশ্য। তবে পার্ফেক্ট কোন সিস্টেম কোথা কবে। 

2 comments:

Anonymous said...

হিটলার, চার্চিলম মুসোলিনি, স্তালিন, ট্রুম্যান এইসব প্রাতঃস্মরণীয় ব্যক্তিদের ছেড়ে দিলেন ?

DD said...

Cannibalism - এটা একটু বাড়াবাড়ি হয়ে গেল না? তবে শেষের বাক্যদ্বয়; বাহ্ বাহ্, সাত খুন মাফ

এমন একটা সোমবার

সহকর্মী মিহি সুরে ডেকে বলবেন, "ভাই, তোমার জন্য আজ পান্তুয়া এনেছি, বাড়িতে বানানো৷ তোমার বৌদির স্পেশ্যালিটি৷ লাঞ্চের পর আমার টেবিলে একবা...