Saturday, February 26, 2022

দুধে-ভাতে-মেডিক্লেমে

মেডিক্লেমের মত ভালো খরচ আর হয়না৷ প্রভিডেন্ট ফান্ডে টাকা জমা হওয়ার চেয়েও জরুরী বোধ হয় মেডিকাল ইন্স্যুরেন্স৷ নুন আনতে পান্তা ফুরিয়ে যাওয়ার দেশে অবশ্য সে ব্যাপারটা অনেকের জন্যই সহজলভ্য নয়৷ তবে ঈশ্বরী পাটনীর দুধে-ভাতে থাকার স্বপ্নে একটা বড় অংশ জুড়ে বোধ হয় বিপদেআপদে ফতুর না হয়ে খানিকটা লড়তে পারার ক্ষমতা৷ 

সরকারি হাসপাতালের নিখরচায় চিকিৎসার সুযোগও অবশ্যই আছে৷ কিন্তু মেডিক্লেমের ভরসায় বেসরকারি চিকিৎসার দিকে তাকানোর দুঃসাহসটুকু অন্তত পাওয়া যায়৷ প্রাইভেট মানেই ভালো? না৷ কিন্তু, কোনও দরজাই বন্ধ নেই; এ ভরসার মূল্য ওই দুধভাতের সমান৷ 

আমার এক পরিচিত মানুষ মাঝেমধ্যেই চেনা লোকজনকে ফোন করে জিজ্ঞেস করেন মেডিকাল ইন্স্যুরেন্স আছে কিনা, থাকলে প্রিমিয়াম নিয়মিত জমা করা হচ্ছে কিনা৷ এমন গায়ে পড়া প্রশ্নে অনেক বিরক্ত হন, আমিও হয়েছি একসময়৷ কিন্তু তা'তে সেই পরিচিত মানুষটার উৎসাহে ভাটা পড়েনা৷ তিনি জোর গলায় বলেন, "ভালো আছিস কিনা জিজ্ঞেস করার চেয়ে মেডিক্লেমের খোঁজ নেওয়া ভালো"। 

তবে সেই পরিচিত মানুষটির গায়ে-পড়া যতই উড়িয়ে দিই, একটু অবাক হই যখন অনেকে একটা নিয়মিত আয় থাকা সত্ত্বেও মেডিকাল ইন্স্যুরেন্স ব্যাপারটা নিয়ে গা করেন না৷ কিছু ভাসা ভাসা কারণ শুনতে পাই। "আরে এই জোয়ান বয়সে আবার মেডিক্লেম কেন"৷ "খামোখা অতগুলো টাকা প্রিমিয়াম দেব, কিন্তু গোটা বছর শেষে কোনও ক্লেমই হবে না। গোটাটাই জলে"৷ "ও'সব আমি বুঝি না ভাই"৷ 

প্রতিটা মানুষের মেডিক্লেমের প্রিমিয়াম যেন বছরের পর বছর জলে যায়; কাউকেই যেন হাসপাতালমুখো না হতে হয়৷ তবে ওই, খেটেখুটে জমানো সঞ্চয় উজাড় হয়ে যাওয়ার দুঃখ যে কী নিদারুণ৷ হাসপাতাল চত্ত্বরে দাঁড়িয়ে সবেধন নীলমণি ফিক্সড ডিপোজিট ভাঙার প্ল্যান করতে করতে বুকের মধ্যে যে কী বিশ্রী মচরমচর শব্দ হয়, সে'টা কল্পনা করে নিতে অসুবিধে হয়না৷

মেডিক্লেম মানেই কি সব সমস্যার সমাধান? আদৌ নয়৷ আজকাল সত্যিই মেডিকাল ইন্স্যুরেন্সের দর আকাশ ছোঁয়া৷ দরাজ ইনস্যুরেন্স কভার বাগানো চাট্টিখানি কথা নয়৷ কিন্তু বিপদে-আপদে একটা উজ্জ্বল ভরসা, ব্যাপারটা সত্যিই বড় দামী৷ কত দামী? বছরে একবার পুরী ঘুরতে যাওয়ার চেয়েও, মাসে দু'বার রেস্তোরাঁয় খাওয়ার থেকেও, বইমেলায় ঝাঁপিয়ে পড়ার থেকেও; ঢের বেশি দামী৷ 

No comments:

পুরনো লেখা