Sunday, March 26, 2017

ফেসবুক, জিন্দেগী ও ভ্যারেণ্ডা

আদত জীবন ফেসবুকের মত হলে সুবিধে হত।

স্ক্রোল করতে পারাটা খুব দরকারি। কেউ মিউচুয়াল ফান্ড বা পলিটিক্স নিয়ে ভালো ভালো কথা বললে স্ক্রল করে এগিয়ে যাওয়া যেত।

"আর খবরটবর বলুন"বলিয়েদের আনফলো করে রাখলে তাঁদের সঙ্গে মোলাকাতের আর সুযোগ থাকত না।

বৌ গুম থাকলে নিশ্চিন্তে জিজ্ঞেস করে ফেলতাম "হোয়াট ইজ অন ইওর মাইন্ড"?

বর্ষাকালে প্রকাশিত পুজোবার্ষিকী দেখলেই নির্দ্বিধায় স্প্যাম বলে রিপোর্ট করতাম।

বাজারে প্রথম হিমসাগর দেখলেই টুপ করে একটা চকচকে হার্ট শেপের বুদবুদ আমার সামনে ভেসে উঠত।

স্যান্ডো গেঞ্জি ঢলা পাজামায় মোড়া আলো করে বসে শ্যামাসঙ্গীত গাইব, প্রাইভেট পোস্টে। ক্লোজ ফ্রেন্ডস অনলি।
পাবলিক পোস্টে চিবিয়ে চিবিয়ে পলিটিকাল জ্ঞান ঝেড়ে দু'চারজনকে মোরন বলবো।

সো অন অ্যান্ড সো ফোর্থ।

হিমালয় ডাকেগা তো লগ অফ করেগা। নয়তো ভ্যারেণ্ডা ভাজতা রহেগা।

No comments:

ধপাস

সাঁইসাঁই। সাঁইসাঁই। সাঁইসাঁই। পড়ছি তো পড়ছিই। পড়ছি তো পড়ছিই। পড়ছি তো পড়ছিই। পড়ছি তো পড়ছিই। বহুক্ষণ পর আমার পড়া একটা প্রবল 'ধপ...