Monday, April 21, 2014

অমলেট ও মামলেট

-          বাবা, কবিতা আর পদ্য কি এক ?

-          বাবু, মামলেট আর অমলেট কি এক ?

-          এক নয় ?

-          ভাব...।

-          একই তো।

-          চোখ বোজ। প্রব্লেমটায় কনসেন্ট্রেট কর। এ'বার বল, মামলেটে আর অমলেটে কী ফারাক ?

-          তুমি বলো মামলেট। নিতাইমামা বলে অমলেট।

-          গুড। আর ?

-          নিতাইমামার ফ্ল্যাট বাড়িতে গেলেই আমায় অমলেট খাওয়ায়। চিনামাটির সাদা প্লেটে কী সুন্দর ভাবে সাজিয়ে দেওয়া। ওপরে গোলমরিচের গুঁড়ো ছড়ানো। প্লেটের এক কোণে থাকে অল্প টমেটো সস্‌। আর থাকে কাঁটা চামচ।


-          বাঃ বাবু। তোর অবজারভেশন তো বেশ নিখুঁত। আর এইবার আমার মামলেট সার্ভ করায় ফিরে যা। ভাতের পাতে। স্টিলের থালায়। ডাল গড়িয়ে অমলেটে মিলে মিশে লটপট ব্যাপার।

-          তোমার মামলেটে পেঁয়াজ আর লংকা কুচি বেশি থাকে। জব্বর। নিতাইমামার অমলেট পেঁয়াজ কম থাকে, কিন্তু একটু চিজ্‌ দেয় বোধ হয়।

-          প্লাস, আমার মামলেট সর্ষের তেলে কড়া করে ভাজা; লালচে মন কেমনের আভা মামলেটের গায়ে। আর নিতাই সাদা তেলে যে অমলেট ভাজে তার চামড়া নরম আর রং একদম ড্যাজলিং ইয়েলো।

-          তাই তো, এ'দিকে আমি ভেবেছিলাম অমলেট আর মামলেট বুঝি এক।

-          যাক। আর চিন্তা নেই। এবার তুই ধরে ফেলবি। অমলেট হচ্ছে কবিতা আর পদ্য হল গিয়ে মামলেট। ওকে ?

-          ধুর!

-          মাইরি।

3 comments:

Parama Ghosh said...

ki bhalo lekha eta!!! ekdom chottobela phiriye dili :)

Unknown said...

আমলেট মামলেট যাই হোক , ক্ষুধা নিবারণ হলেই হল । Tenders business in
Bangladesh.

surjagupta said...

ha ha darun lekha pore moja pelam

ধপাস

সাঁইসাঁই। সাঁইসাঁই। সাঁইসাঁই। পড়ছি তো পড়ছিই। পড়ছি তো পড়ছিই। পড়ছি তো পড়ছিই। পড়ছি তো পড়ছিই। বহুক্ষণ পর আমার পড়া একটা প্রবল 'ধপ...