Tuesday, September 25, 2012

মনের বাইসেপ, হৃদয়ের ট্রাইসেপ


“এই যে স্যার, হ্যাঁ, এই যে, আপনাকেই বলছি স্যার,গুড মর্নিং, এই যে ট্রেড-মিলে ঝড় তুলে আপনি বেদম দৌড়চ্ছেন, এ তে আপনার মেদ ঝড়ছে ঠিকই, কিন্তু মগজের জং সাফ হচ্ছে কই?হৃদয়ের ঝুল ঝাড়-পোছ হচ্ছে কই? কলজেতে হাওয়া খেলছে কই? চাবুক শরীরে খেন্তী-বুড়ির মন পুষে কী লাভ? মাল্টি-জিম ছেড়ে মনটি জিমে দিন। দৈন্য দূর করুন।

রোল-কাবাবের তেলে রক্ত ভরিয়ে নিতে কসুর করবেন না; জিহ্বা শাণিত হবে।
দুম-ফটাস হাসতে গিয়ে আটকে যাবেন না; হৃত্পিণ্ড অক্সিজেন পাবে।
জমাটি প্রেম করুন, বউ-প্রেম, বিয়ণ্ড বউ-ভালো লাগা জড়ো করুন; মনের শিকল আলগা হবে।
হুইস্কি খান; পাঁজড় কড়ক পাবে।
মাসে একবার গাঁজা টানুন; মগজে তিরিং যাবে।
খিস্তি করুন; ফুসফুস বল পাবে।
ফাইল-পত্তর মাঝে-সাঝে সাইড করে বেদম আড্ডা জমান; চোখে চমক আসবে।  
ঘুমের মধ্যে যাতে  ডাকাতে ভঙ্গিমায় নাক ডাকতে পারেন তার জন্যে সাধনা করুন; নির্মল শান্তি মালুম হবে

ভূড়ি ম্যানেজ করাটাই সব নয় স্যার! অন্তর-আত্মা কে মনন-খাদ্যে ভূড়ি-ভোজ করান, তবেই না উত্তরণ?”

এ কোন অমোঘ দৈব-বাণী আমার কানে বর্ষিত হলো? কোন মহাপুরুষ আমার কানে এই মহামন্ত্রের বীজ বপন করে গেলেন? টের পাওয়ার আগেই ঘুম গেলো চটকে বউএর কলার ধরে ঝাঁকুনিতে:
“ওঠো,ওঠো বলছি! থ্যাবড়া গোবর-গণেশ কোথাকার! খালি গিলবে আর ভূড়ি পুষবে! এত কষ্ট করে জিমে ভর্তি করালাম, আর জিমে এসে কী না তুমি টুলে বসে ঘুমোচ্ছো? ডিসগাস্টিং! ওয়েক আপ নাউ!”


No comments:

অনুরাগের লুডো

অনুরাগবাবু আমার অত্যন্ত প্রিয়৷ তার মূলে রয়েছে "বরফি"। লোকমুখে ও বিভিন্ন রিভিউয়ের মাধ্যমে জেনেছি যে বরফিতে ভুলভ্রান্তি ...