Monday, August 6, 2018

বরফি ও ইলিশ।


বরফি।


শ্রুতি। বরফির শ্রুতি। ঝিলমিলের 'বরফি' ডাক শুনে ঘুরে দাঁড়ানো শ্রুতি। টাইমিং-ঠাইমিং ক্রিকেট মাঠে দিব্যি থাকে। জীবনে মিডল অফ দ্য ব্যাট বলে কিছু না থাকলেও ইনিংস দাঁড়িয়ে যায়, এবং সে কারণেই বরফি সিনেমাটা মূলত শ্রুতির গল্প।

আর গান। আর শ্রুতির দার্জিলিংয়ের বাড়ির সামনে বরফির সাইকেলে লাথি। আর গান। আর কলকাতায় 'ফির লে আয়া দিল'য়ের সুরে শ্রুতির ঝিলমিল-বরফিকে দেখা। আর গান। 

বছরে বার-দুয়েক বরফি দেখে মনমেজাজ ম্যারিনেট করে নেওয়া উচিৎ।

ইলিশ।


মা যে কদ্দিন গান গাইতে বসে না। হারমোনিয়ামটা ডকে। ছেঁড়া লাল মলাটের গানের খাতাটাও কদ্দিন দেখিনা। বিন্দু বিন্দু জলের মত হাতের লেখায় নজরুল আর রজনীকান্ত; খাতার শুরুতে আর শেষে ফাউন্টেন কলমে আঁকা আল্পনা।

আজ রাত করে ফিরে বললাম 'খেয়েদেয়ে এসেছি'। মা বললে 'তবু, এঁটো মুখ না করলে ঘুম আসবে নাকি'? 

আমাদের সাংসারিক হুজ্জুতি, অবুঝ দাবীদাওয়া আর স্টার জলসা মিলে মায়ের গাইতে বসা বন্ধ করলেও, মায়ের থেকে সুর কেড়ে নিতে পারেনি।

No comments:

দ্য গ্র‍্যান্ড তুকতাক

- কী চাই? - হুঁ? - কী চাই? চাকরীতে টপাটপ প্রমোশন বাগানোর মাদুলি? শুগার কন্ট্রোলে রাখার তাবিজ? হাড়বজ্জাত মানুষজনের বদনজর এড়িয়ে চল...