Wednesday, July 31, 2013

মেজাজ ও স্নান



নিজের ওজন বুঝে নেওয়া উচিৎ সকলের। সরি স্যার। ওজন বলতে ভুঁড়ি বা মানিব্যাগের পরিধি মাপতে বলছি না। মেজাজের গভীরতা দিকে নজর দিচ্ছি।

গুরুজনেরা বলে গেছেন যে মেজাজটাই আসল রাজা। মেজাজ গড়বড়ে হলে, পকেটে টু পাইস্‌ থাকলেও আপনার ইচ্ছে করবে এইবেলা এলুমিনিয়ামের বাটি হাতে খানিক ভিক্ষে করে আসি। কাজেই মেজাজকে খোকার হাতের মোয়া করে রাখার বিশেষ প্রয়োজন।

মুস্কিল হচ্ছে, মেজাজ মাপার যন্ত্র বলতে কিছু নেই। নিজের মেজাজটা যে রাজকীয় না এলেবেলে;সেটা না বুঝলে চলবে কেন। তবে, ইয়ে...উপায় আছে। মেজাজকে আঁক মেপে চিনে নেওয়ার উপায় আছে। কি ভাবে ? তা বলতেই এ পোস্টের পাঁয়তারা।

মেজাজ মাপার একটা জলবৎ-তরলং উপায় হল  অতি সহজ প্রশ্নের উত্তর দেওয়া –

“ আপনার এখন কি ভাবে স্নান করতে ইচ্ছে করছে ?

কউন বনেগা ক্রোরপতির ঢঙে এখানেও থাকবে অপশন্‌স।

প্রথম অপশন - স্নান করতে ইচ্ছে করছে না ? অসময় মনে হচ্ছে  ? স্নানে অভক্তি ? অর্থাৎ - গেঁজে আছেন। মেজাজ চটকে চ হয়ে রয়েছে। আপনার মনের সাথে তুলনা করে করলাকে রসগোল্লা বলা যেতে পারে।

দ্বিতীয় অপশন - কর্পোরেশনের নল থেকে তির্‌তিরিয়ে বেরিয়ে আসা জলে ভরা এলুমিনিয়ামের বালতি। প্লাস্টিকের মগের বার দুই ঝপঝপ। সাবান-টাবানের বাড়াবাড়ির মানে হয় না। গামছা দিয়ে কড়া ভাবে গা মুছে বেরিয়ে আসা।
অর্থাৎ - আপনার মেজাজ ভারি বাড়াবাড়ি রকমের ব্যস্ত। হয়ত সামান্য বেরসিক।

তৃতীয় অপশন - খোলা শাওয়ারের নিচে দাঁড়িয়ে গা মেলে দিতে ইচ্ছে করছে বুঝি ? মাথায় শ্যাম্পু, গায়ে লাক্স, কণ্ঠে শ্যামল মিত্র ?
অর্থাৎ -আপনি প্রেমময় মেজাজে ভাসছেন। আহা:। আহা:। আহা:। এ মেজাজের আপনিকে গোটা পৃথিবী চুমু খেতে চাইবে।

চতুর্থ অপশন - পুকুরে ডুব-স্নান।
অর্থাৎ -হয় কবিতা লিখবেন নয়ত এডভেঞ্চারে বেরবেন। সহজ ভাষায় বললে, আপনার মেজাজ চাইছে চমকিলা কিছু করতে। “ থাকবো না আর বদ্ধ ঘরে / ল্যাজ নাড়বো চিত্ত ভরে” গোছের ফুর্তিবাজ ভাব।  

পঞ্চম অপশন - সমুদ্রে লাফঝাঁপ
অর্থাৎ -ফুর্তি ভালো, বেআক্কেলে আহ্লাদ ভালো নয়। মেজাজে লাগাম দিন নয়ত কপালে দুঃখ আছে।

ষষ্ঠ অপশন - সর্ষের তেল গায়ে রগড়ে সামান্য দৈহিক কসরত। তারপর নারকোল তেলে চুপচুপে করে নেওয়া মাথা। এরপর গামছা আর মার্‌গো সাবান হাতে এসে দাঁড়ানো পাতকুয়ো তলায়। ঝপঝপ ঠাণ্ডা কুয়োর জল মাথায়, ফুরফুরে হাওয়া গায়ে, মুখে গুনগুন ভুল ভর্তি রবীন্দ্রনাথ।
অর্থাৎ - হে রাজন, আপনার মেজাজই শ্রেষ্ঠ। আপনার মন এখন আলেকজান্ডার আর সমুদ্রগুপ্তের মিলিত দীপ্তিতে পরিপূর্ণ।   জাগতিক সুখ দুঃখের অনেক উপরে ভাসছে আপনার হৃদয়-সাম্রাজ্য। আপনি শুধু ভোগ করবেন না, উপভোগ করবেন প্রতিটি কানাকড়ি। আপনিই সুন্দর।  

No comments:

ধপাস

সাঁইসাঁই। সাঁইসাঁই। সাঁইসাঁই। পড়ছি তো পড়ছিই। পড়ছি তো পড়ছিই। পড়ছি তো পড়ছিই। পড়ছি তো পড়ছিই। বহুক্ষণ পর আমার পড়া একটা প্রবল 'ধপ...