Tuesday, November 17, 2015

গাধা আর খোকা



এক খোকা গাধার পিঠে চেপে যাচ্ছিলে কোথাও একটা। লোকে হই হই রই রই করে বলতে লাগলে "দ্যাখ দ্যাখ ব্যাটাচ্ছেলে কী ইরেস্পন্সিব্‌ল! দ্যাখ দ্যাখ!অবলা জানোয়ারটাকে খাটিয়ে মারলে। হারমজাদা। সেন্সলেস্‌"। 

খোকা ঘাবড়ে গিয়ে করলে কি গাধার পিঠ থেকে নেমে গাধা কে নিজের কাঁধে চাপিয়ে হাঁটা দিলে। তখন লোকে হই হই রই রই করে হাসাহাসি করতে থাকলে আর বলতে লাগলে "দ্যাখ ঢ্যামনার বুদ্ধি দ্যাখ। গাধা কাঁধে মলো। মাথায় গোবর, গুবরে পোকা"। 

সেই খোকা নিজের ফেসবুকের ছবি প্যারিসের দুঃখে সে দেশের পতাকার রঙে ছোপালে। অমনি লোকে হই হই রই রই করে চ্যাঁচালে; "শালা লাল চামড়ার পা চাটা হনুমান। ব্যাটাচ্ছেলে ইরাকে সিরিয়ায় টপাটপ লোক নিকেশ হচ্ছে তখন ছবির রঙ পাল্টানোর কথা মনে ছিল না? রাস্কেল। নিনকম্‌পুপ!"। 

খোকা তড়িঘড়ি ফেসবুকের ছবিতে রক্তমাখা ওয়ার্ল্ড ম্যাপ লাগালে; দশের দুঃখে কান্না, দশের আনন্দে ফুর্তি; তবেই তো। অমনি লোকে হই হই রই রই করে বাগড়া দিলে " লে ব্যাটা, ফেসবুকে ছবির রঙ পাল্টে কে কবে বিপ্লব এনেছে চাঁদু? এও এক সেলফি গোছের বাতিক। শালা লোকে মারা যাচ্ছে আর ইনি ফেসবুকে হ্যাংলামো করছেন। অসভ্য, বেখাপ্পা টেক জানোয়ার"। খোকার জিজ্ঞেস করা হল না জন গন গেয়ে কে কবে দেশের জিডিপি বাড়িয়েছে। বা দু'মিনিট নীরবতায় কার আত্মা বালিশ পায়। 

**
- মামা, ফেসবুকের ডিপির রঙ চেঞ্জ করা কি ফ্যাশনের ব্যাপার আজকাল?এটা কি আজকাল লোকে খাচ্ছে? 
- না। 
- মামা। 
- আবার কী! 
- বলি, কেউ ফেসবুকের ডিপির রঙ চেঞ্জ করলে তাকে নিয়ে খিস্তি খিল্লি করাটা কি তবে ফ্যাশন? 
- না। 
- গুলিয়ে যাচ্ছে। পাব্লিক বলছে সমস্তটাই ফ্যাশনবাজিতে চলছে। 
- ফ্যাশন আছে। 
- কোথায়?
- ঝগড়ায়। পোলারাইজ্‌ড খিস্তি খাস্তায়। আমি ঠিক, তুই ভুল; তার মাঝে গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন। দেয়ার লাইজ দ্য ফ্যাশন।

No comments:

বাইশের দুই বিনোদ দত্ত লেন

- কাকে চাই? - ম্যাডাম, এ'টা কি অমলেশ সমাদ্দারের বাড়ি? - ওই ঢাউস নেমপ্লেটটা চোখে পড়েনি? ও'টায় কি অমলেশ সমাদ্দার লেখা আছে?...