Sunday, July 6, 2014

ম্যাজিক

- ম্যাজিক দেখবেন ?

- রিয়েলি ?

- অফ কোর্স। দেখবেন ?

- আপনি মশাই জব্বর কিন্তু...কই দেখান দেখি...

- এই রেস্তরাঁয় যা বসে আছি, এটা কোথায় ?

- দেশপ্রিয়...তো ?

- দেশপ্রিয় পার্ক কোথায় ?

- ক্যালক্যাটা। 

- ক্যালক্যাটা কোথায়? 

- ধুর মশাই। 

- পেশেন্স। ম্যাজিক আসছে। কোথায় ক্যালক্যাটা ?

- পশ্চিম বাংলায়। অ্যান্ড বিফোর ইউ আস্ক...পশ্চিম বাংলা রয়েছে ভারতে।

- ওকে। ভারত কোথায় ?

- যাচ্চলে। ভারত ? পৃথিবীতে!

- আর পৃথিবী ? 

- খেয়েছে। কি কুক্ষণেই যে ম্যাজিক দেখতে চাইলাম...

- আহ! ফোকাস করুন। পৃথিবী কোথায় আছে ?

- সোলার সিস্টেমে। 

-নাইস। সোলার সিস্টেম ?  সেটা কোথায়!

-সোলার সিস্টেম রয়েছে মিল্কি ওয়ে গ্যালাক্সিতে! তাই তো ?

- আর মিল্কি ওয়ে কোথায় আছে বলুন তো ? সুপার ক্লাস্টারে। 

- সুপার ক্লা...?

-ক্লাস্টার!। অনেকগুলো গ্যালাক্সি মিলে এক একটা সুপার ক্লাস্টার তৈরি হয়..

-দাঁড়ান মশায়...এক ঢোক জল খেয়ে নি...

- আর এই সুপার ক্লাস্টার রয়েছে কোথায় ? 

- ইউনিভার্সে ?

- সমগ্র ইউনিভার্সে নয়। অবজারভেব্‌ল ইউনিভার্সে। অর্থাৎ যেটুকু মহাবিশ্ব আপনার গোচরে রয়েছে। 

- অগোচরে কিছু আছে নাকি ?


- এবার বলুন দেখি, এই অবজারভেব্‌ল ইউনিভার্সটি কোথায় আছে ? 

- হু?

- কোথায় আছে ?

- লে হালুয়া। মহাবিশ্বই তো ফাইনাল ইউনিট। 

- তাই বুঝি ?

- তাই নয় বুঝি ?

- ধরুন মাল্টিপ্‌ল মহাবিশ্ব...

- মাল্টিপ্‌ল ?

- ইয়েস স্যার...

- অনেকগুলো মহাবিশ্ব মিলে মাল্টিভার্স...এক একটি বুদ্বুদের ভেতর অনেক গুলো ইউনিভার্স...যাকে আমরা বলছি মাল্টিভার্স...

- শরীর কেমন করছে...

- এবার ধরুন সেই কয়েকটা বুদ্বুদ মিলে যদি হয় একটা মলিকিউল... 

- যা! কি হচ্ছে কি...

- এই যে আপনি..আপনার ভেতরের অক্সিজেন... দেহের কার্বন...হাড়ের ক্যালসিয়াম...রক্তে আয়রন...আরও কত কিছু! সে মলিকিউলদের স্রোত আঁচ করতে পারছেন না আপনি ? অথচ সে অগুনতি মলিকিউলদের সাথে...কত অগুনতি মাল্টিভার্স...কত অগুনতি গ্যালাক্সি...কত অগুনতি সূর্য... কত অগুনতি পৃথিবী...কত অগুনতি কলকাতা...আপনার মধ্যে বয়ে চলেছে...সম্ভবত কত অগুনতি আপনি আপনার নিজের ভেতর খাবি খাচ্ছেন...ম্যাজিক নয় বলুন ?

- আ...আ...আমার মধ্যে...আ...আ...আমি... ?

- ম্যাজিক নয়...?

- আ...আ...আলবাত। নিজেকে ভীষণ ইনকন্সপিকুয়াস মনে হচ্ছে বুঝলেন...মানে মলিকিউল তো সব জায়গাতেই...

- নিশ্চয়ই...যেমন ধরুন আপনার কাটলেটে...কত অসংখ্য মলিকিউল...কত অসংখ্য দুনিয়া...কত অসংখ্য...

- মানে কত অসংখ্য ক্যালকাটা আর কত অসংখ্য আমি...তাই তো? এই কাটলেটের মধ্যে ? উফ! সাঙ্ঘাতিক। অ্যাপেটাইট চলে গেছে বুঝলেন। টাচ করতে মন চাইছে না...খাবেন নাকি আমার পাতের কাটলেট! এঁটো হয়নি...

-দামুর কেবিনের এই কাটলেট আপনি আমায় আধ খাওয়া অবস্থায় দিলেও হ্যাপিলি অ্যাক্সেপ্ট করতাম। থ্যাঙ্ক ইউ...আর ইয়ে ম্যাজিকটা টের পেলেন তো ?

- ওই ম্যাজিক অফ দ্য মাল্টিভার্স তো ? 

- না। আদত ম্যাজিকটা...যে জাদুর বলে আপনি আপনার পাতের এ মহার্ঘ কাটলেট নির্দ্বিধায় আমায় সঁপে দিলেন...

- যা! 

2 comments:

Soumya Mukherjee said...

Ha ha ha ha shushwaadu ending! :)

Anonymous said...

নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়ের একটা দারুণ গল্প আছে একই রকমের।
মিঠু

"দ্য লোল্যান্ড" প্রসঙ্গে

যিনি "দ্য লোল্যান্ড" রেকমেন্ড করেছিলেন তিনি এককথায় এ উপন্যাস সম্বন্ধে বলেছিলেন; "বিষাদসিন্ধু"। বিষাদসিন্ধুতে...