Friday, October 14, 2011

কফি-শপের হাসিয়ে



সিমলার মল-রোড ধরে হাঁটতে হাঁটতে, চড়াই-উতরাই মেপে নিতে নিতে টুক-টাক খিদে পেতেই থাকবেএমত অবস্থায় বেদম-হারে মোমো-চাউমিন-সিজলার হজম করে যখন একটু মিষ্টি মুখ করব ভাবছি, এমন সময় নজরে এলো এমব্যাসি নামে একটি খাদ্য-বিহারবাইরে থেকে অতি মনোরম চেহারাভেতরে কাঁচে ঘেরা বসবার জায়গাটিও বেশ মনোরম, বসলেই বেশ অর্ধেক সিমলার বসতি চোখের সামনে জুড়ে বসে
এসব দেখে ঢুকে পড়লাম এমব্যাসিতে আর একটা চেয়ার টেনে যাবতীয় আলস্য মেলে দিয়ে বসে পড়লাম এবং একটা চকোলেট কেক আর এক টুকরো আপেলের পাই অর্ডার দিয়ে দিলামএ খাদ্যালয়টি এক দিকে বিচিত্রস্থান নেহাত স্বল্প বলা চলে না কিন্তু এখানের মালিক তথা ম্যানেজার তথা রাঁধূনি তথা ওয়েটার একজনই

; শ্রী মালহোত্রামাঝ বয়েসী ভদ্রলোক, মুখে সর্বক্ষণ হাসি লেগে রয়েছে এবং এর দিকে তাকালেই মনে হবে যে এনার প্রাণে আনন্দ যেন ধরছে নাকেক শেষ করে যখন কফির অর্ডার করলাম তখন ওনার এত আনন্দ হল যেন লাখ-টাকার কোনও কথা বলে ফেলেছিআর যে প্রবল উত্‍সাহে উনি নিজের হাতে কফি বানিয়ে এনে আমার পাশে বসলেন, এবং এক গাল হেসে সুধোলেন যে কফি টা কেমন হয়েছে,যে প্রশ্ন করতেই হল


-মাল্হোত্রাবাবু, আপনি বেশ আমুদে দেখছি, নিজের কাজ খুব ভালোবসেন আপনি, তাই না?’
-আলবাত ভালবাসি, এ আমার নিজের এলাকা,নিজের পছন্দ মত রাঁধি, চিত্কার করি, গান গাই, যাকে খুশি খাওয়াই প্রাণ ভরে, এর চেয়ে আনন্দের আর কি হতে পারে?’
-বটেই তো, তবে কি না, আজকাল আত্ম-তৃপ্ত ব্যক্তি তো বিশেষ দ্যাখা যায় না...’, আমতা আমতা করে বলতে হল আমাকে।
-কেন বলুন তো এমনটা হয়? কারণ আমাদের কেতাবী শিক্ষা আমাদের ধমনীতে আস্তে আস্তে মরফিয়া ঠুসে আমাদের জ্যান্ত লাশ বানিয়ে ফ্যালে মিস্টার মুখার্জী
এরপর যে দুটো কথা মাল্হোত্রা-বাবু বললেন, সেই কথা দুটি Quote করতেই এই পোস্ট। ভদ্রলোক কথা দুটি ইংরিজিতে বলেছিলেন, ইচ্ছে করেই অনুবাদ করছি না;
-Mr.Mukherjee, have you ever felt exhilarated to see an isolated star in the sky? Or have you ever felt like bursting with happiness on hearing the cry of a jungle bird returning to its nest at the night? No? That’s because your Education has killed you from inside, you are probably dead inside if you cannot cry like a child at the sight of a leaf smeared with morning dew. Only an Educated man seeks reason to be happy. But Mr.Mukherjee, I’ll be honest, even I have my sadness to live with”
-“Really? And what makes you sad?”
-“What makes me sad?”, এই প্রথম দেখলাম মাল্হোত্রা-বাবুর হাসিতে ঈষত বিমর্ষ-রঙ যোগ হল, Mr.Mukherjee, I feel sad, when I realize that at the end of it all, I belong to a specie, that worships the heaven that it has not seen, and destroys the earth that it lives in. Have a good day Sir”, এটুকু বলে ভদ্রলোক আমার কফি-শেষ হওয়া কাপটা উঠিয়ে, টেবিল সাফ করে চলে গেলেন।

পরিশিষ্ট:
এমব্যাসি'তে এরকম বহু হাতে লেখা পোস্টার দেখতে পাওয়া যাবে:

3 comments:

Suhel Banerjee said...

One of those blog posts that leaves you with mixed feelings. Glad to know such men exist. Sad to know we co-exist.

ginger candy said...

Brilliant! Erokom manush ekhono prithibi te ache seta bhabtei bhalo lage.

Cheers,
Joydeep

Satyaki said...

Been there, met that man... jani na keno eta age porini....
By the way he makes exquisite "Lamb Roast"